ত্রিপুরা ফোকাস

No result ..

নোবেলজয়ী এখন মুখ লুকোতেই ব্যস্ত

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বার বার প্রশ্নের সামনে পড়ছেন একদা মানবতার প্রতীক সু চি। মনবাধিকার নামক ধারণাটিকেও নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বুদ্ধিজীবী থেকে সাধারণ মানুষ— সকলেই। একসময়ে তাঁকেই পৃথিবী মনে করেছিল ‘মানবতার মুখ’। তাঁর সংগ্রাম, তাঁর জীবন আজ অনেক দেশেরই স্কুলে পড়ানো হয়। মায়ানমারের একদা আপসহীন নেত্রী বিশ্বশান্তি বিষয়ে নোবেলজয়ী আউং সাং সু চি-র যাবতীয় ভাবমূর্তিতে এই মুহূর্তে কিন্তু কলঙ্কের প্রবল ছিটে। রোহিঙ্গা হত্যা ও বিতাড়নের ঘটনায় গোটা পৃথিবীই এখন মায়ানমারের বিরুদ্ধে। এবং নেত্রী সু চি নিজেও জানেন এই বৃত্তান্ত। তাই কি তিনি যেতে নারাজ জাতিপুঞ্জের সাধারণ সভার আসন্ন সম্মেলনে?সংবাদসংস্থা জানাচ্ছে, মায়ানমারের প্রেসিডেন্সিয়াল দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে, সু চি দু’টি কারণে তাঁর সফর প্রত্যাহার করেছেন। দেশে সন্ত্রাসী হামলা বৃদ্ধি এবং অন্যান্য মানবিক কাজের ব্যস্ততা হেতু তিনি মার্কিন দেশে উপস্থিত থাকতে পারছেন না— এমন কথাই বলা হয়েছে সেখানে। বলাই বাহুল্য, ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটির নামগন্ধ ছিল না এই বক্তব্যে।

সেপ্টেম্বরের ১৯ থেকে ১৫ তারিখের মধ্যে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। কিন্তু সু চি এতে থাকছেন না জেনে বিশ্বের অধিকাংশ মিডিয়াই প্রশ্ন তুলছে, তবে কি মুখ লুকোতে চাইছেন নোবেলজয়ী নেত্রী? কমবেশি ৪ লক্ষ রোহিঙ্গা এই মুহূর্তে গৃহহীন। জাতিপুঞ্জের হিসাব অনুযায়ী, প্রতিদিন প্রায় ২০,০০০ রোহিঙ্গা মায়ানমার সীমান্ত পেরচ্ছেন।জাতিপুঞ্জের মানবাধিকার শাখার প্রধান জেইদ রা’দ আলি হুসেইন প্রকাশ্যে বলেছেন, মায়ানমার সেনার তরফে রোহিঙ্গা বিতাড়ন একটা ‘সাফাই অভিযান’। তাঁর বক্তব্য থেকেই বোঝা যায়, এই ভায়বহ নির্যাতন পূর্বপরিকল্পিত। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বার বার প্রশ্নের সামনে পড়ছেন একদা মানবতার প্রতীক সু চি। মনবাধিকার নামক ধারণাটিকেও নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বুদ্ধিজীবী থেকে সাধারণ মানুষ— সকলেই। এখন দেখার, কতদিন এভাবে পালিয়ে বেড়াতে পারেন নোবেলজয়ী ‘শান্তির দূত’ মায়ানমার-নেত্রী।

ভিডিও গ্যালারী

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.