ত্রিপুরা ফোকাস

খেলা

স্কুলের প্রশ্নপত্রে বিরাট–অনুষ্কা

‘ক্রিকেটার ‌বিরাট কোহলির প্রেমিকা কে ?’‌‌ স্কুলের প্রশ্নপত্র দেখে ভিরমি খেল পড়ুয়ারা। মহারাষ্ট্রের ভিওয়ান্ডির ঘটনা। ‘‌চাচা নেহরু হিন্দি হাইস্কুল’‌–এর নবম শ্রেণীর শরীর শিক্ষা পরীক্ষা চলছিল। প্রশ্নপত্র হাতে পেতেই চমক। সঠিক উত্তর বেছে নাও বিভাগে বিরাট কোহলির প্রেমিকার নাম জানতে চাওয়া হয়। প্রশ্নের পাশে অনুষ্কা শর্মা, দীপিকা পাড়ুকোন ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার নাম লেখা ছিল। সঠিক উত্তর বেছে নিয়ে শূন্যস্থান পূরণের নির্দেশ দেওয়া হয়। ২০১৩ সালে ভারতীয় ক্রিকেটার বিরাট কোহলির সঙ্গে অভিনেত্রী অনুষ্কা শর্মার সম্পর্কের সূত্রপাত। সংবাদমাধ্যমে প্রায়শই তাঁদের নিয়ে লেখালেখি হয় বটে। তাই বলে স্কুলে প্রশ্নপত্রেও তাঁরা?‌ সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনর ঝড়। এর আগে, সেপ্টেম্বর মাসে বায়ুসেনার পরীক্ষায় দীপিকা পাড়ুকোনকে নিয়ে প্রশ্ন করা হয়েছিল। সেবারও সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় ওঠে।

 

রনজিতে ভেলকি দেখাল ত্রিপুরা

ত্রিপুরা–‌‌২৭৫ ও‌ ৩৪০ (‌ডিঃ)‌

সার্ভিসেস–‌‌২৩৩ ও‌ ১৬৩
ঘরের ছেলের কঁাধে ভর করে রনজিতে ভেলকি দেখাল ত্রিপুরা। গুয়াহাটিতে সার্ভিসেসকে হারিয়ে ইতিহাসের পাতায় নাম লিখে নিলেন মণিশঙ্কররা। ২১৯ রানে জয়ের উল্লাসে ১০ লক্ষ টাকা আর্থিক পুরস্কার ঘোষণা করল ত্রিপুরা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন। শেষ ৪ বছরে এই প্রথম রনজিতে জয়ের স্বাদ পেল ত্রিপুরা। রবিবার ত্রিপুরার ক্রিকেটের ইতিহাসে রেকর্ড সংখ্যক রানে জয় পেল।

Read more...

দুষ্কৃতীর গুলিতে হত টাইসন গে’র ১৫ বছরের মেয়ে

টাইসন গে-র মেয়েও বাবাকে অনুসরণ করে স্প্রিন্ট করত। স্কুলে ট্রিনিটির ইভেন্ট ছিল ১০০ এবং ২০০ মিটার। শনিবার ভোর রাতে দুষ্কৃতীদের গুলিতে প্রাণ হারাল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অলিম্পিক্স স্প্রিন্টার টাইসন গে-র ১৫ বছরের কন্যা ট্রিনিটি গে।প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য, লেক্সিংটনে কুক আউট নামে এক রেস্তোরার সামনে দাঁড়িয়েছিল ট্রিনিটি। সেই সময় দুষ্কৃতীদের ছোড়া গুলি তার ঘাড়ে লাগে। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়ে টাইসন গে-র মেয়ে। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

Read more...

নির্বাচকদের বার্তা যুবরাজের

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তাঁর শেষ তেরো ইনিংসে সেঞ্চুরি তো দূর অস্ত, পঞ্চাশের মুখ একবারও দেখেননি। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে আসন্ন ওয়ান ডে সিরিজে ভারতীয় দলে ডাক পাননি। এহেন আবহে জীবন এবং বাইশ গজ, দু’জায়গাতেই বহু যুদ্ধের জয়ী নায়ক যুবরাজ সিংহ ১৪তম ইনিংসটাকে পঞ্জাব-মধ্যপ্রদেশ রঞ্জি ম্যাচের প্রথম দিনই টেনে নিয়ে গেলেন ১৬৪-তে। এবং অপরাজিত ফিরলেন ড্রেসিংরুমে। যুবরাজের সঙ্গে যোগ্য সঙ্গত দিলেন গুরকিরত সিংহ (১০২ বলে ১০১ নট আউট)। দু’জনের বিধ্বংসী পার্টনারশিপে একটা সেশনের মধ্যেই ওঠে ১৫২ রান। যার দাপটে লাহলিতে প্রথম দিনের শেষে পঞ্জাব ৩৪৭-৩। যেটা এই ভেনুতে কোনও ম্যাচের প্রথম দিনের শেষে সর্বোচ্চ স্কোর। যুবরাজেরা ভেঙে দিলেন রাজস্থানের বিরুদ্ধে হরিয়ানার তোলা ৩৩৯-কে।

পঞ্জাবের এ দিন পড়া তিন উইকেটের দু’টো নেন ঈশ্বর পাণ্ডে। কিন্তু তিনি বা সতীর্থ কোনও বোলারই যুবরাজের পিটুনির থেকে বাঁচতে পারেননি। ২৪১ বলে ২৪ বাউন্ডারিতে সাজানো যুবরাজের ২৫তম প্রথম শ্রেণির সেঞ্চুরি তাঁর কেরিয়ারের একটা মাইলফলকে পৌঁছনোর যোগ্য ঝলমলে। দিনের শেষে যুবরাজদের দলের ইনিংস যতই আরও বড় রানের দিকে এগোনোর ইঙ্গিত দিক, সকালে তিনি কিন্তু ক্রিজে এসেছিলেন বেশ খারাপ অবস্থায়। লাহলির সবুজ পিচে পঞ্জাব তখন ১৫-২। কিন্তু যুবরাজ প্রথমে ওপেনার জিওয়ানজিৎ সিংহের (৬১) সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ১৮০ রান যোগ করেন। তার পরে দিনের বাকি সময়টা চলে অবিচ্ছেদ্য চতুর্থ উইকেটে যুবরাজ-গুরকিরত জুটির আক্রমণ।

জাতীয় দল থেকে সদ্য ছিটকে পড়া যুবরাজ তাঁর প্রত্যাবর্তনের ইনিংসের প্রতিক্রিয়া মাত্র একটা বাক্যে দিয়েছেন এ দিন। কিন্তু অনুজ পার্টনার গুরকিরতের সেঞ্চুরির ভূয়সী প্রশংসা করেন। বলে দেন, ‘‘সবুজ উইকেটে দুর্ধর্ষ আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলেছে গুরকিরত। আমার দেখা অন্যতম সেরা ইনিংস এটা। ও সিরিয়াস চ্যাম্পিয়ন।’’ আর নিজের ইনিংস প্রসঙ্গে? ‘‘ভিন্টেজ যুবি সিংহ ইনিংস,’’ বলেন যুবরাজ।

 

অশ্বিনে কুপোকাত নিউজিল্যান্ড

সিরিজের প্রথম দুই টেস্টে শুধু হেরেছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু ইন্দোরে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে বেশ লজ্জার সামনেই পড়তে চলেছে নিউজিল্যান্ড। ভারতের প্রথম ইনিংসে করা ৫৫৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে গতকাল নিউজিল্যান্ডের রান ছিল বিনা উইকেটে ২৮। এদিনও শুরুটা কিউয়ি ব্যাটসম্যানরা দারুণ করেন। দুই ওপেনার ল্যাথাম এবং গুপ্তিল দিব্যি খেলছিলেন। একটা সময় এই দুই ওপেনারের জন্যই কিউয়িদের রান ছিল বিনা উইকেটে ১১৭। কিন্তু সেখান থেকেই অশ্বিনের হাতের জাদুতে ধসে যায় নিউজিল্যান্ডের ইনিংস। ১৪৮ রানের মধ্যেই পড়ে যায় ৫ উইকেট! শেষ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংস শেষ হয় ২৯৯ রানে।

একাই৬ উইকেট নেন অশ্বিন। দুটো উইকেট নেন জাদেজা। মজার কথা দুজন রান আউট হন। ওই দুটো রান আউটেও হাত ছিল অশ্বিনের! গুপ্তিল করেন ৭২ রান আর ল্যাথাম করেন ৫৩ রান। পরে নিশাম রেন ৭১ রান। এছাড়া আর কোনও কিউয়ি ব্যাটসম্য়ানই বলার মতো রান পাননি। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় দিনের শেষে ভারতের রান বিনা উইকেটে ১৮। মুরলী বিজয় ১১ রানে অপরাজিত রয়েছেন আর গম্ভীর আউট না হয়েও চোট লাগায় বেরিয়ে গিয়েছেন মাঠ থেকে। তাঁর রান ৬। পুজারা অপরাজিত রয়েছেন ১ রানে।

 

ভিডিও গ্যালারী

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.