ত্রিপুরা ফোকাস

খেলা

দলে পরিবর্তন আনতে চলেছেন অধিনায়ক কোহলি

ইন্ডিজের সঙ্গে একদিনের সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে দলে পরিবর্তন আনতে চলেছেন অধিনায়ক কোহলি। এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছেন তিনি। তবে ঠিক কী কী পরিবর্তন তিনি আনতে চলেছেন, সে ব্যাপারে তিনি কিছু বলেননি। একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের সূত্রে জানা যাচ্ছে, বিরাট এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, ‘‘আমরা নিশ্চয়ই এ বার পরিবর্তনের দিকে তাকাবো। আমাদের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার আছে, যারা এর মধ্যে একটি ম্যাচেও খেলার সুযোগ পায়নি।’’ সিরিজে ভারত ২-০ এগিয়ে গিয়েছে। এই সময়েই দলে পরিবর্তনের সেরা সুযোগ বলে মনে করছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। এ দিন গত ম্যাচ নিয়ে বিরাট বলেন, ‘‘শুরুর দিকে পিচে আর্দ্রতা ছিল। ওরা সত্যিই ভাল বল করছিল।’’ ২৫০ রান করতে তাঁদের যে বেশ বেগ পেতে হয়েছে মেনে নেন বিরাট। তবে এই রানেই বোলাররা যে ভাবে চাপ সৃষ্টি করেছেন, তার প্রশংসা করেন তিনি।

Read more...

ভারতীয় এ দল এবং অনুর্দ্ধ ১৯ দলের কোচে দ্রাবিড়ই

অনিল কুম্বলেকে  সরে যেতে হলেও রাহুল দ্রাবিড়ের চুক্তি নবীকরণ করল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। পুনরায় আগামী দু বছরের জন্য  ভারতীয় এ দল এবং অনুর্দ্ধ ১৯ দলের কোচের দায়িত্বে বহাল রইলেন প্রাক্তন ভারতীয় এই মিডিল অর্ডার ব্যাটসম্যান। ২০১৫ সালে বোর্ড দ্রাবিড়কে প্রথম এই দায়িত্ব দেয়। বোর্ড কর্তাদের দাবি  গত দু বছরে ভারতীয় ক্রিকেটে তরুণরা যে দাপট দেখাচ্ছেন , তার নেপথ্য কারিগর দ্রাবিড়। তারই প্রশিক্ষণে ভারতীয় এ দল অষ্ট্রেলিয়াতে ত্রিদেশীয় সিরিজ জেতে। আর ২০১৬ অনুর্দ্ধ ১৯দল জেতে বিশ্বকাপ। বোর্ড কর্তারা মনে করেন দ্রাবিড়ের প্রশিক্ষন এবং শৃঙ্খলাপরায়ন ভারতীয় সিনিয়র দলের সাপ্লাই লাইনকে আরও মজবুত করবে।

প্রশাসক না হলে আমিও আবেদন করতে পারতাম : সৌরভ

ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচ হওয়ার জন্য রবি শাস্ত্রী আবেদন করেছেন। এই খবর পুরনো। শাস্ত্রীর আবেদনের পরেই সৌরভকে নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে গোটা দেশে — ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটির সদস্য হিসেবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বিষয়টা কীভাবে দেখছেন। অনিল কুম্বলেকে কোচ করার সময়ে শাস্ত্রী ও সৌরভ অধ্যায় ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম আলোচিত বিষয় হয়েছিল। দু’জনের সম্পর্কও সেই সময়ে তলানিতে এসে ঠেকেছিল। ভারতের দুই প্রাক্তন অধিনায়কের সম্পর্কের বরফ গলেছে কিনা এখনও জানা নেই। সেই সময়ে দুই যুযুধান ক্রিকেটারকে সামলানোর জন্য শেষ পর্যন্ত আসরে নামতে হয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডকেও। কুম্বলে জমানা এখন অতীত ভারতীয় ক্রিকেটে। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় সরে যেতে হয় ভারতের প্রাক্তন লেগস্পিনারকে। নতুন কোচের সন্ধান শুরু হয়েছে এখন। প্রথম দিকে বীরেন্দ্র সহবাগের নাম দৌড়ে থাকলেও পরিস্থিতির এখন পরিবর্তন হয়েছে।

Read more...

আরবে 'মিনি আইপিএল'

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের জনপ্রিয়তাকে মাথায় রেখেই এবার আরব আমির শাহীতে (UAE) 'মিনি আইপিএল' করার কথা ভাবছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড, জানালেন আইপিএলচেয়ারম্যান রাজীব শুক্ল। "বিদেশের মাটিতে মিনি আইপিএল আয়োজন করার কথা ভাবা হচ্ছে। বিগত সময়ে আমরা বিদেশের মাটিতেই চ্যাম্পিয়নস লিগ টি-টোয়েন্টির আয়োজন করেছি, সেই স্লট তো এখন ফাঁকাই আছে। ওই শূণ্য স্থানেই মিনি আইপিএল করার কথা ভাবছি আমরা", এই কথাই জানিয়েছেন আইপিএল চেয়ারম্যান। দুবাইকে ভেনু করার প্রসঙ্গে রাজীব শুক্ল বলেন,"আয়োজকদের জন্য সব থেকে পছন্দের গন্তব্যই হল দুবাই"। উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে ভারতে লোকসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে ভারতে আইপিএল করায়নি বোর্ড, টুর্নামেন্ট হয়েছিল দুবাইতেই। 

Read more...

নতুন শৃঙ্গজয়, জনপ্রিয়তার নতুন ধাপে ‘কিং’ কোহলি

তিনি এই মুহূর্তে ভারতীয় ক্রিকেটের মুখ। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে টসে জিতেও ফিল্ডিং নেওয়ার জন্য যতই সমালোচিত হোন নো কেন, মানুষের তাঁর উপর আকর্ষণ দিনে দিনে বাড়ছে। নতুন যে তথ্য সামনে এলো, তা থেকে আরও একবার সেটাই প্রমাণিত হল। ফেসবুক ফলোয়ারের সংখ্যায় সলমন খানকে টপকে গিয়ে ভারতীয় হিসেবে দু’নম্বর স্থানে উঠে এলেন ‘কিং’কোহলি। একে তো ব্যাট হাতে অতিমানবীয় পারফরম্যান্স। তার সঙ্গে রয়েছে বিপক্ষের চোখে চোখ রাখা, হাতে ট্যাটু আর দাড়ি-গোঁফের কম্বিনেশনে এক্কেবারে এই সময়ের তরুণদের মন জয় করে নেওয়া‘অ্যাটিটিউড’। সঙ্গে বাড়তি মশলা যোগ করেছে অবশ্যই বলিউড সুন্দরী অনুষ্কার সঙ্গে অ্যাফেয়ার। এই সবের সম্মিলিত আবেদনেই কোহলির জনপ্রিয়তার গ্রাফ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। তারই ফলশ্রুতি সল্লু মিয়াঁকে পিছনে ফেলে দেওয়া। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ৩৫ লক্ষ ফলোয়ার তাঁর। ‘ভাইজান’-এর থেকে প্রায় ৬ লক্ষ বেশি। সামনে কেবল দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মোদীর ফলোয়ারের সংখ্যা ৪২ লক্ষেরও বেশি।

Read more...

ভিডিও গ্যালারী

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.