ত্রিপুরা ফোকাস

সাহিত্যের পাতা

রূপসী রুদ্রপলাশ

জায়েদ ফরিদ

রূপসী রুদ্রপলাশ

বসন্তের শুরুতে রুদ্রপলাশের রাশি রাশি ফুল দেখে মানুষ অভিভূত হয়ে পড়ে। আদিবাস পশ্চিম আফ্রিকা হলেও আমাদের দেশে রয়েছে অঢেল। দূর থেকে দেখতে থোকা থোকা টিউলিপ সদৃশ বলে এর ইংরাজি নাম আফ্রিকান টিউলিপ। এই ফুলের কুঁড়িতে পলাশের (Butea monosperma) আদল আছে, রংটাও তদ্রূপ এবং স্বভাবে যেন রুদ্র বা উগ্র, তাই হয়ত অধ্যাপক দ্বিজেন শর্মা একে রুদ্রপলাশ নামে সার্থক করেছেন। উপযুক্ত আবহাওয়ায় হাওয়াই দ্বীপে সারা বছর ধরেই ফুটতে থাকে এই ফুল যার আরো কিছু অর্থবহ নাম আছে।

গাছের চূড়ায় অগ্নিশিখার মতো মনে হয় বলে একে ‘ফ্লেমিং ট্রি’ বা ‘ফ্লেম অফ দি ফরেস্ট’ বলা হয়, যা পলাশ বা আরো কিছু গাছের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হতে পারে। আরেকটি নাম ‘ফাউনটেন ট্রি’, ফুলের কুঁড়ির ভেতরে থাকে জল। বয়স তিন-চার বছর হলেই ফুল ধরে গাছে, আর তখন সেগুলো বেশ নিচু থাকে বলে আফ্রিকার ছেলেমেয়েরা এই কুঁড়ি নিয়ে খেলার সুযোগ পায়। আগায় সামান্য ছিদ্র করে টিপ দিলে তীরবেগে বেরিয়ে আসে পানি যাকে তারা ব্যবহার করে খেলনা ‘ওয়াটার-গান’ হিসাবে। যখন ফুল ফোটে তখন সেগুলি জোড়া লাগা পাপড়ির কারণে বৃষ্টি বা শিশিরের জল ধারণ করে, যে জল ‘ফাউন্টেন’ থেকে পান করে পাখিরা।

Read more...

মহাসত্যের বিপরীতে (পর্ব - ২)

শ্যামল ভট্টাচার্য

মহাসত্যের বিপরীতে  (পর্ব - ২)

দুই.  অলৌকিক মখপোল ও অসহায় চমরি

বিশাল কালো চমরি গাইটির পিঠ থেকে বরফে গড়িয়ে পড়ে পাঁজরে ক্ষুরের লাথির ব্যথায় অবশ হতে হতে ছিলিঙ পানচুক জানবাকের আবার মনে পড়ে যায় একটি অলৌকিক মখপোল আর ঠাকুর্দা ডাম্মা ডুল্কু গরবের কথা।

Read more...

মানুষে- মানুষে সংযুক্তির উৎসব

রুমা মোদক ।। পূজার আনুষ্ঠানিকতা আনন্দের উৎস। সাজ-সজ্জা, মন্ত্র- উপাচার, বিলাস- ব্যসন সেই আনন্দের উৎস নয়।আনন্দের উৎস নয় বাহুল্য খরচের প্রতিমার চাকচিক্য। পূজার আনন্দ মূলত সম্মিলনের আনন্দ। মানুষে মানুষে উৎসব উপলক্ষ করে সংযুক্ত হওয়ার আনন্দ। এই আনন্দে কোন অলৌকিক লাভের হাতছানি নেই।নেই পূণ্যলাভের লোভ।

মানুষে মানুষে সংযুক্ত হবার আনন্দ যুক্ত না হলে পূজা কেবলই পর্যবসিত হয় কিছু আনুষ্ঠানিক আচারে।সংযুক্ততাহীন আচরণ সর্বস্ব আনুষ্ঠানিকতা সার্বিক অর্থে সভ্য মানুষের ইতিহাসে ইতিবাচক কোন ভুমিকা রাখে না।
ভারতীয় উপমহাদেশের স্বাধীনতা অর্জন আর ভারত বিভাগ পারস্পর বিপরীতমুখী দুই ঘটনা এই এলাকাবাসীর। অর্জনের আনন্দ যেখানে বিলীন হয়েছে বিসর্জনে। পরাধীনতার শৃং্খল ছেঁড়ার মাহেন্দ্রক্ষণ যেখানে সিক্ত হয়ে উঠেছে ইতিহাসের করুণতম অশ্রু বিসর্জনে।

Read more...

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.