ত্রিপুরা ফোকাস

No result ..

আন্তর্জাতিক

ভয়ঙ্কর সুনামিতে চলতি বছরেই ধ্বংস হবে পাকিস্তান!

চলতি বছর ৩১ ডিসেম্বর ভারত মহাসাগরে এক ভয়ঙ্কর ভূমিকম্প হতে চলেছে। তার জেরে এক ভয়ঙ্কর সুনামি আছড়ে পড়বে সংলগ্ন এলাকাগুলিতে। তাতে ধূলিসাৎ হতে পারে চীন-পাকিস্তান! এক ভারতীয় এই ভবিষ্যদ্বাণীই নাড়িয়ে দিয়েছে পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই ও আর্থকোয়েক রিহ্যাবিলিটেশন ও রিকনস্ট্রাকশন অথরিটি।বিষয়টি ঠিক কী হয়েছে? সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, গত ২০ সেপ্টেম্বর এক ব্যক্তি মোদিকে একটি চিঠি লেখেন। চিঠিতে ওই ব্যক্তি নিজেকে বাবু কালাইল নামে পরিচয় দিয়েছেন। চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেছেন, তাঁর সিক্সথ সেন্স বলছে, ভয়ঙ্কর সুনামিতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে ভারত, পাকিস্তান, চীনসহ এশিয়ার ১১টি দেশ। ওই ব্যক্তির চিঠিকে খুব বেশি গুরুত্ব দেয়নি ভারত সরকার। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই চিঠি ছড়িয়ে পড়তেই নড়েচড়ে বসে পাকিস্তান। ইতিমধ্যেই বিপর্যয় মোকাবেলার প্রস্তুতি নিয়ে শুরু করে দিয়েছে। সব কর্মকর্তাদের তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। সতর্কতা জারি করা হয়েছে আইএসআই-এর ডিজির তরফেও।

প্রসঙ্গত এখনো ভূমিকম্পের পূর্বাভাস দেওয়ার কোনা প্রযুক্তি আবিষ্কার হয়নি। সেক্ষেত্রে একটি চিঠিই কাঁপিয়ে দিল পাকিস্তানকে।

যুক্তরাষ্ট্রে হামলার ছক উত্তর কোরিয়ার!

যুক্তরাষ্ট্রের শহরগুলির ওপর বড়সড় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাতে পারে উত্তর কোরিয়া। আগামী সপ্তাহে দক্ষিণ কোরিয়া ও মার্কিন নৌবাহিনীর যৌথ মহড়ার আগেই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশের যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ শহর লক্ষ্য করে পিয়ং ইয়ং ছুড়তে পারে আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) হোয়াসং-১৪ বা মাঝারি পাল্লার হোয়সং-১২। দক্ষিণ কোরিয়ার দৈনিক দোঙ্গা লিবো আজ শনিবার এই খবর দিয়ে জানিয়েছে, আলাস্কাসহ মার্কিন শহরগুলির ওপর হামলার জন্য ইতিমধ্যেই জোর প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে উত্তর কোরিয়ার। একটি সরকারি সূত্রকে উদ্ধৃত করে সোলের দৈনিকটি জানিয়েছে, উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়েছে লঞ্চারের ওপর বসিয়ে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রগুলিকে পিয়ং ইয়ং ও উত্তরের ফিওঙ্গান প্রদেশের হ্যাঙ্গারগুলি থেকে বের করে আনা হচ্ছে। সেগুলিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে দেশের সুদূরতম উত্তর প্রান্তে। সেখান থেকেই মার্কিন শহরগুলিকে লক্ষ্য করে আইসিবিএম ছোড়ার পরিকল্পনা রয়েছে পিয়ং ইয়ংয়ের।

Read more...

আফ্রিকার মানুষের সাথে জন্তু-জানোয়ারের তুলনা, ছবি সরাল চিনা মিউজিয়াম

হাঁ করা একটা নরবানরের মুখ। আর তার পাশেই একই রকম অভিব্যক্তিতে একটা আফ্রিকার শিশু, পাশাপাশি। আবার একটা সিংহের ছবি। তার পাশেই দাঁত বের করে একজন আফ্রিকান মানুষ। চিনে আয়োজিত প্রদর্শনীতে এমন ছবি ঘিরে বিশ্বজুড়ে সমালোচনার ঝড়। তার পরই ছবি সরাতে বাধ্য হল চিনা সংগ্রহশালা।চিনের ইউহান শহরে চলছিল এই প্রদর্শনী। "দিস ইজ আফ্রিকা" নামে এই প্রদর্শনীতে বর্ণবৈষম্যের অভিযোগ ওঠে। এরপরই সরিয়ে নেওয়া হয় ছবিগুলি। প্রদর্শনীতে ছিল ১৫০টি ছবি। যদিও সংগ্রহশালার কিউরেটরের বক্তব্য, ছবিগুলির ফোটোগ্রাফার ইউ হুইপিং আফ্রিকা মহাদেশ ও সেখানকার মানুষকে খুবই ভালোবাসেন। ছবির মাধ্যমে আফ্রিকার মানুষ ও জন্তু-জানোয়াদের মধ্যে সহাবস্থানের বিষয়টি তুলে ধরতে চেয়েছিলেন তিনি।

বহুদিন ধরে মার্কিন বন্ধুত্বের ফয়দা তুলেছে পাকিস্তান : ট্রাম্প

বছরের পর বছর  পাকিস্তান মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্রের বন্ধুত্বের ফয়দা তুলেছে। ইসলামাবাদকে এভাবেই নিশানা করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে এখন ইসলামাবাদ বন্ধুত্বের ম‌র্যাদা দিতে শুরু করেছে বলেও মন্তব্য করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পরই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তোপ দাগতে শুরু করেন ট্রাম্প। বছরের পর বছর মার্কিন অনুদান পেলেও সন্ত্রাসদমনের কোনও কাজই পাকিস্তান করেনি বলে অভিষোগ করেন তিনি। দাবি করেন, পাকিস্তানের মাটিতে জঙ্গি নেটওয়ার্ক ভাঙতে হবে। তা না করলে ভবিষ্যতে সবধরনের সাহ‌া‌য্য বন্ধ করে দেওয়া হবেও স্পষ্ট করে দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

Read more...

আইএসআই নিয়ে কটাক্ষ মার্কিন সেনাকর্তার

প্রবল চাপে পাকিস্তান। পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের বিরুদ্ধে জঙ্গিযোগের অভিযোগ তুললেন মার্কিন  শীর্ষ সেনাকর্তা। পাক সরকারের রক্তচাপ বাড়িয়ে মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিবের হুঁশিয়ারি, সন্ত্রাসে লাগাম দিক পাকিস্তান। নয়তো আমেরিকার জোটসঙ্গীর স্বীকৃতি হারাতে হতে পারে । জঙ্গিদের আঁতুড়ঘর পাকিস্তান।  ইন্ধন পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের। এই অভিযোগ শোনা গেছে বারবার। এই প্রথম মার্কিন কংগ্রেসে আইএসআইকে  কাঠগড়ায় তোলা হল। সরাসরি তোপ দেগেছেন মার্কিন শীর্ষ সেনাকর্তা জেনারেল জোসেফ ডানফোর্ড। সেনেটে আফগানিস্তান সংক্রান্ত শুনানিতে তাঁর দাবি, এটা পরিষ্কার যে আইএসআইয়ের সঙ্গে জঙ্গি গোষ্ঠীগুলির সরাসরি যোগাযোগ আছে। সুর আরও চড়িয়েছেন মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব জেমস ম্যাটিস। সেনেটে তাঁর সাফ বক্তব্য, পাকিস্তান সরকার সন্ত্রাস দমনে উদ্যোগ নিলেও, মনে হয়আইএসআইয়ের নিজস্ব বিদেশ নীতি আছে। পাকিস্তান যে আমেরিকার বিশেষ জোট সঙ্গীর মর্যাদা পায়, তাও বাতিল করার ইঙ্গিত দিয়েছেন ম্যাটিস। সন্ত্রাস ইস্যুতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে শুরু থেকেই কড়া মনোভাব নিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু এই প্রথম সরাসরি কাঠগড়ায় আইএসআই। আন্তর্জাতিক মহলে কোণঠাসা পাকিস্তানের উদ্বেগ আরও বাড়িয়ে দিল ওয়াশিংটন।

Read more...

ভিডিও গ্যালারী

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.