ত্রিপুরা ফোকাস

No result ..

জাতীয়

২০১৯-এর মধ্যে প্রশিক্ষণ শেষ করতেই হবে প্রাথমিকে প্রশিক্ষণহীন শিক্ষকদের

প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের সময়সীমা বেঁধে দিলেন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। মঙ্গলবার এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি জানান, ২০১৯-এর মধ্যে প্রশিক্ষণ শেষ করতে হবে প্রশিক্ষণহীন প্রাথমিক শিক্ষকদের। মন্ত্রী জানিয়েছেন, এনআইওএস-এর অধীনে দূরশিক্ষার মাধ্যমে প্রশিক্ষণের যে ব্যবস্থা করা হয়েছে তাতে নাম নথিভুক্ত করেছেন মোট ১৫ জন শিক্ষক। অপ্রশিক্ষিত শিক্ষকদের তালিকায় বিহার ও মধ্যপ্রদেশের পরেই রয়েছে বাংলা। প্রকাশ জাভড়েকর জানিয়েছেন, ১৫ লক্ষের মধ্যে মোট ১০ লক্ষ আবেদনই করেছেন বেসরকারি স্কুলের শিক্ষকরা। বিহার থেকে ১.৯৫ লক্ষ, মধ্যপ্রদেশ থেকে ১.৯১ লক্ষ ও পশ্চিমবঙ্গ থেকে ১.৬৯ লক্ষ শিক্ষক আবেদন করেছেন। জাভড়েকরের কথায়, প্রশিক্ষিত শিক্ষকের কাছ থেকে শিক্ষালাভ ছাত্রদের অধিকার। সেই পথেই এগোচ্ছে সরকার। রাজ্যে প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের এই করুণ দশার দায় অবশ্য নিতে রাজি নন প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য। তাঁর দাবি, সরকারি স্কুলের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণদান প্রায় সম্পূর্ণ। কেন্দ্রের নির্দেশ মেনে দফায় দফায় প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে তাদের।শিক্ষার অধিকার আইন অনুসারে ২০১৯ সালের মার্চের মধ্যে প্রাথমিক স্কুলের সমস্ত শিক্ষককে প্রশিক্ষণ নিতে হবে।

আনন্দময়ীর আগমনে প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে মানুষের ঢল

আনন্দময়ীর আগমনীর সুরে উত্‍সবের আনুষ্ঠানিক সূচনা। প্রাণের উত্‍সবে ঢাকের বাদ্যি অবশ্য বেজে গিয়েছে মহালয়ার পর থেকেই। তবে শাস্ত্রমতে মহাষষ্ঠী মানে সপরিবারে উমার বাপের বাড়ি আসার দিন। সেই সূচনা লগ্নে উত্‍সবে-আনন্দে মাতোয়ারা সবাই। নির্ঘন্ট মেনে পঞ্চমীর রাতেই দেবীর বোধন হয়ে গিয়েছে অনেক জায়গায়। বোধনের পর অধিবাসের পালা। আজ ষষ্ঠী তিথিতে চলছে নানা আচার উপাচার। আমজনতার ক্যালেন্ডারে দুর্গোত্‍সব এবার অনেক আগেই শুরু হয়ে গিয়েছে। পুজো ম্যানিয়া এমনই যে, কার্যত দ্বিতীয়া থেকে পথে জনজোয়ার। লাইমলাইটে নজরকাড়া সব থিম। চোখ টানছে প্রতিমাও। একবার দেখে মন ভরছে না কারোরই। শুধু আশ্বিনের শারদ প্রাতে নয়, রাতেও প্যান্ডেল হপিংয়ের ক্রেজ সব বাঁধ ভেঙে দিয়েছে। ক্লান্তি বলে শব্দটাই যেন ডিকশনারি থেকে উধাও এ'কদিনের জন্য। সপরিবারে মা এসেছেন মর্তে। এই সময়টা শুধু তারই জন্য। বছরের সেরা কয়েক দিন, যার জন্য অপেক্ষা থাকে সারাটা বছর। পরিবারের সঙ্গে, বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে মিলে চুটিয়ে আড্ডা, দেদার খাওয়াদাওয়া আর অবশ্যই দেবীদর্শনে মেতে রাজ্যবাসী।

ভিডিও গ্যালারী

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.