ত্রিপুরা ফোকাস

No result ..

আইপিএফটি সমর্থকদের হাতে খুন রাজ্যের তরুণ সাংবাদিক, রাজ্যজুড়ে প্রতিবাদ

আইপিএফটি’র উগ্র সমর্থকদের হাতে খুন হলেন রাজ্যের তরুণ সাংবাদিক শান্তনু ভৌমিক৷ বুধবার জিরানীয়া থানার অন্তর্গত মান্দাইয়ে সড়ক অবরোধের সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে আইপিএফটি কর্মীরা তাকে পিটিয়ে খুন করে৷ নিহত সাংবাদিকের বয়স মাত্র ২৮ বছর৷ সে স্থানীয় বৈদ্যুতিন চ্যানেল দিনরাতের সাথে যুক্ত ছিল৷ উল্লেখ্য, মঙ্গলবার গণমুক্তি পরিষদের সাথে আইপিএফটি কর্মীদের দফায় দফায় সংঘর্ষের জেরে উত্তপ্ত ছিল পরিস্থিতি৷ এরইমধ্যে সকাল থেকেই দুই দলের সমর্থকদের মধ্যে চলছিল হামলা পাল্টা হামলার ঘটনা৷ পরবর্তী সময়ে আইপিএফটি কর্মীরা জিরানীয়া-মা্ন্দাই সড়ক অবরোধ করে৷ এই সংবাদ সংগ্রহের জন্য ঘটনাস্থলে গিয়েছিল শান্তনু৷ পুলিশের সাথে কিছুদূর যেতেই পুলিশকে লক্ষ্য করে পাল্টা ধা্ওয়া করে আইপিএফটি সমর্থকরা। পেছনে পড়ে যায় সাংবাদিক শান্তনু৷ আইপিএফটি কর্মীরা পেছন দিক থেকে তাকে বাঁশ দিয়ে মাথায় আঘাত করলে সংগে সংগে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে৷ এরপর সেথান থেকে কিছুটা দূরে নিয়ে গিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়৷ আইপিএফটি কর্মীরা দীর্ঘ প্রায় দেড় ঘন্টা যাবৎ মৃতদেহ আটকে রাখে৷ এরপর জিরানীয়ার মহকুমা শাসক পুলিশ বাহিনী নিয়ে গিয়ে শান্তুনুকে উদ্ধার করে জিবি হাসপাতালে নিয়ে আসে৷ কিন্তু ততক্ষণে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে শান্তনু৷ 

এই খবরে চরম ক্ষোভ ও চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে৷ ক্ষুব্ধ সাংবাদিকরা আইজিএম চৌমুহনিতে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে সড়ক অবরোধে বসে৷ খবর পেয়ে পুলিশের মহানির্দেশক অকুস্থলে ছুঁটে এলেও ক্ষুব্ধ সাংবাদিকদের শান্ত করতে পারেননি৷ রাত প্রায় সাড়ে ১০টা নাগাদ মুখ্যমন্ত্রীর সাথে মহাকরণে কথা হয়৷ সেখানে চারদফা দাবি রাখা হয়৷ এরমধ্যে প্রথম দাবিটি ছিল বৃহস্পতিবার দুপুরের মধ্যে সাংবাদিক খুনের সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে হবে৷ অন্যান্য দাবিসমূহের মধ্যে ছিল ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারটিকে ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ, একজনকে চাকরি ও সাংবাদিকদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা৷

মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, এই খুনের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হবে৷ তবে কবে তা এক্ষুনি বলা যাচ্ছে না৷ এছাড়া অন্যান্য দাবিগুলি দেখা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন৷ সাংবাদিক খুনের ঘটনায় তীব্র ভাষায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ত্রিপুরা ওয়ার্কিং জার্নালিস্টস্ এসোসিয়েশন ও আগরতলা প্রেস ক্লাব৷ এছাড়া সিপিএম রাজ্য সম্পাদকমন্ডলী ও কংগ্রেসের তরফেও সাংবাদিক খুনের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে দোষীদের শাস্তি দাবি করা হয়েছে৷

ভিডিও গ্যালারী

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.