ত্রিপুরা ফোকাস

রাজ্য

মৈত্রীর যাত্রা বন্ধ, যাত্রী দুর্ভোগ

মৈত্রী বাসের অনেকদিন ধরে যাতায়াত বন্ধ। আগরতলা-ঢাকা-কলকাতা রুটে মৈত্রীর যাতায়াত বন্ধে যাত্রী দুর্ভোগ চরম আকার নিয়েছে। বিপাকে পড়েছেন উভয়দিকের যাত্রীরা। কিছুদিন আগে কলকাতা যাবার পথে আন্তর্জাতিক চেকপোস্টের কাছে দুর্ঘটনাগ্রস্থ হয়ে পড়ার পর মৈত্রীর যাতায়াত বন্ধ হয়ে আছে। গত ২২ জুন দুর্ঘটনাটি ঘটে। দুর্ঘটনাগ্রস্থ মৈত্রী-র বাসচালকের বিরুদ্ধে মামলা হওয়া স্বত্বেও চাকরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত না হওয়ায় প্রশাসনিক কাজকর্ম প্রশ্নের মুখে। মামলায় জড়িয়ে পড়া বাসচালকের বিরুদ্ধে টিআরটিসি কর্তৃপক্ষ কার্যকরী পদক্ষেপ না নেয়ায় চরম অভিযোগ উঠেছে।  দুর্ঘটনায় বাংলাদেশের শুল্ক দপ্তরের জিপ গাড়ির চালকের মৃত্যু হয় এবং ২জন শুল্ক অফিসার গুরুতর আহত হয়েছিলেন। বাংলাদেশ পুলিশ বাসচালককে গ্রেপ্তার করে। পরে টিআরটিসি কর্তৃপক্ষ বাসচালককে জামিনে ছাড়িয়ে আনে। আইন মোতাবেক বাসচালকের চাকরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত হবার কথা। টিআরটিসি কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে নীরব ভূমিকা নেয়ায় নাগরিক মহলে ক্ষোভ পরিলক্ষিত।

১৩ হাজার পদে নিয়োগে অনিশ্চয়তা

শিক্ষক নিয়োগে সর্বোচ্চ আদালতের সিদ্ধান্তের পর ত্রিপুরাকে আর বিশেষ কোনও ছাড় দেবে না কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ রাষ্ট্রমন্ত্রী একথা জানিয়েছেন। রাজ্য সরকারকে নিয়ম মেনেই নিয়োগ করতে হবে। আইনের বাইরে কিছু করার ক্ষমতা কারুর নাই। প্রদেশ বিজেপি কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, চাকুরীচ্যূতদের নিয়োগ করতে রাজ্য সরকার নতুন করে ১৩ হাজার পদ সৃষ্টি করে সিদ্ধান্ত আনা হয়েছে সেদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের নজর রয়েছে। এ ধরণের পদ সৃষ্টির সম্ভাবনা, যৌক্তিকতা প্রয়োজনে এ সকল পদের অর্থবরাদ্দ বন্ধ করে দেয়া হবে। দেশের সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের পর ত্রিপুরা সরকাকে আর ছাড় দেয়া হবে না। কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ রাষ্ট্রমন্ত্রী ডঃ মহেন্দ্র নাথ পান্ডের এ বক্তব্যে ১৩ হাজার পদে নিয়োগে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

সিপিআইএম-র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য গৌতম দাস-কে সিবিআই-র জিজ্ঞাসাবাদ

রোজভ্যালি চিটফান্ড কেলেঙ্কারী মামলায় এ রাজ্যে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী বিজিতা নাথের পর এবার সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করলো সিপিআইএম-র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য গৌতম দাস-কে। জানা যায়, মন্ত্রী শ্রীমতি নাথের মতো গৌতম বাবুকেও একই রকম আগাম নোটিশ পাঠিয়েছিল সিবিআই। শনিবার এক বিবৃতিতে শ্রী দাস একথার সত্যতা স্বীকার করেন। তিনি জানান, তার আইনজীবীর উপস্থিতিতে, সিআরপিসি ১৬০ ধারায় একজন স্বাক্ষী হিসেবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তিনি সিবিআই-কে জিজ্ঞাসাবাদে সহযোগিতা করেছেন বলে সিবিআই অফিসার জানান। আরও অনেকের নাম রয়েছে সিবিআই-র জিজ্ঞাসাবাদের তালিকায়। দলীয় সূত্রে খবর, আরও ৩ জন নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে একই কায়দায়। বিরোধী দলের বেশ কয়েকজনের নামও সিবিআই-র জিজ্ঞাসাবাদের তালিকায় রয়েছে বলে জানা যায়। বিবৃতিতে সিপিআইএম-র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য গৌতম দাস অবশ্য দাবী করেছেন, রোজভ্যালী বা অন্যকোনও চিটফান্ডের সাথে তার কোনও সম্পর্ক নেই।

আজ থেকে খার্চি শুরু

আজ শুরু হলো ঐতিহ্যবাহী খার্চী পূজা। রাজ্যে শান্তি-সম্প্রীতির ঐতিহ্যবাহী সপ্তাহব্যাপী এই মিলন উৎসবের এবার ২৫৭ বছর হলো। ১৭৬০ সালে পুরনো আগরতলার চতুর্দশ দেবতা মন্দিরে শুরু হয়েছিল এ পূজার। এ উৎসবের আকর্ষন জাতি-জনজাতির মধ্যে ক্রমশঃ বেড়েই চলছে। ত্রিপুরার রাজবংশের কুল দেবতা হল এই চতর্দশ দেবতা। আজ খয়েরপুরে খার্চী পূজা প্রাঙ্গনে মেলা ও প্রদর্শনীর আজ সূচনা করেন পর্যটনমন্ত্রী রতন ভৌমিক।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিধানসভার উপাধ্যক্ষ পবিত্র কর, এডিসি-র চেয়ারম্যান রণজিৎ দেববর্মা সহ প্রমুখ।

রোজভ্যালী চিটফান্ড সংস্থার মামলার তদন্তে সমাজকল্যাণমন্ত্রী বিজিতা নাথকে জেরা করলেন সিবিআই আধিকারিকরা

রোজভ্যালী চিটফান্ড সংস্থার মামলার তদন্তে আগেই নোটিশ ছিল, সমাজকল্যাণমন্ত্রী বিজিতা নাথকে জেরা করবেন সিবিআই আধিকারিকরা৷ বৃহস্পতিবার, সিবিআই আধিকারিকরা চলে যান মহাকরণে মন্ত্রীর চেম্বারে৷ দু’জন আধিকারিক মন্ত্রীর চেম্বারে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন৷ কেন্দ্রীয় তদন্তকারী আধিকারিকরা প্রায় এক ঘন্টা কথা বলেছেন মন্ত্রীর সাথে৷ তাদের মধ্যে কী কথা, আলোচনা হয়েছে সে সম্পর্কে কেউই স্পষ্ট করে বলতে চাননি৷ সিবিআই আধিকারিকরা মিডিয়ার সামনে মুখ খুলতে চাননি৷ মন্ত্রী বিজিতা নাথ জানান, সিবিআইকে সহযোগিতা করব বলে জানিয়েছিলাম৷ সেই মত যে সমস্ত প্রশ্ন করা হয়েছে তার উত্তর দেওয়া হয়েছে৷ মন্ত্রী বিজিতা নাথের মহকুমায় রোজভ্যালীর কাজকর্ম সম্পর্কে সিবিআই আধিকারিকরা প্রশ্ন করেছিলেন বলে জানালেও এর অতিরিক্ত কোন জিজ্ঞাসা সিবিআইয়ের প্রশ্নমালায় ছিল কিনা সে সম্পর্কে তিনি কিছু বলতে চাননি৷ সমাজকল্যাণমন্ত্রী শ্রীমতি নাথ প্রচণ্ড ক্ষোভ প্রকাশ করেন, সিবিআইয়ের নোটিশ ফাঁস ইস্যুতে৷ শ্রীমতি নাথ সিবিআইয়ের কাছ থেকে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সিবিআই আধিকারিকরা বলেন, তাঁদের তরফ থেকে নোটিশ ফাঁস হয়নি৷ জানা যায়, আগামী দিনে আরও কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তিকে সিবিআই জেরা করতে পারে৷ এরমধ্যে শাসক দলের এমনকি বিরোধী রাজনৈতিক দলেরও দু’একজন থাকতে পারে৷

Read more...

ভিডিও গ্যালারী

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.