ত্রিপুরা ফোকাস

No result ..

রাজ্য

আগরতলা বিমানবন্দরে ধরা পড়লো অর্ধ কোটি টাকার সোনার বিস্কুট

পাচারের উদ্দ্যেশে নিয়ে যাবার সময় আগরতলা বিমানবন্দরে উদ্ধার হলো ১৫টি সোনার বিস্কুট। যার বাজার মূল্য অর্ধ কোটি টাকা। বাংলাদেশী এক যুবক এই সোনার বিস্কুট কলকাতায় পাচার করছিল। বিমানবন্দরের কঠোর নিরাপত্তা বলয় দেখে উদ্ধার হওয়া সোনার বিস্কুট ফেলে কৌশলে পালিয়ে যায়। আন্তর্জাতিক সোনা পাচারকারীকে গ্রেফতারে ব্যর্থ হয় নিরাপত্তা রক্ষীরা। জানা যায়, সন্দেহভাজন সেই বাংলাদেশী পাচারকারীর নাম লিটন আহমেদ। সোমবার আকাশপথে সোনার বিস্কুটগুলি সে কলকাতা নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। সিআইএসএফ সোনার বিস্কুটগুলি উদ্ধার করে কাস্টমের হাতে তুলে দেয়। বিমানবন্দরে সিসি ক্যামেরা বিকল থাকার সুযোগ নিয়ে সন্দেহভাজন যুবকটি পালিয়ে যায় বলে খবর। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, সোমবার ইন্ডিগো বিমানে বিকেল সাড়ে তিনটায় কলকাতা যাবার যাত্রী তালিকায় ২৯৪ নম্বর বিমান যাত্রী ছিল বাংলাদেশী নাগরিক লিটন আহমেদ।

Read more...

উত্তর-পূর্ব কথাসাহিত্য উৎসব : ২০১৭

সাহিত্যে মানবতা প্রতিষ্ঠা করে পরবর্তী প্রজন্মকে আলোকিত করতে হবে।ধর্মের নামে দৌরাত্ম্য বাড়ছে ধর্মান্ধদের।জঙ্গিবাদের উত্থান হচ্ছে।রুখে দাঁড়াতে হবে সিভিল সোসাইটিকে।ভাষনে বলেন প্রখ্যাত কথা সাহিত্যিক ড.সেলিনা হোসেন।শনিবার আগরতলার ভগৎ সিং যুব আবাস মিলনায়তনে।স্রোত আয়োজিত "উত্তর-পূর্ব, ভারত-বাংলাদেশ ও নেপাল মিলনোৎসব-২০১৭" অনুৃঠানে মধ্যমনি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এই কথাসাহিত্যিক।শনিবার দুপুরে আখাউড়া চেকপোস্ট হয়ে রাজ্যে আসেন তিনি। আলোচনা করতে গিয়ে ড.সেলিনা হোসেন আরও আরও বলেন,ধর্মীয় পরিচয়ে মানুষকে ভাগ করবেননা।দেশভাগ মেনে নিতে পারেনি, তাই সাহিত্যের কাছে মনোবেদনা নিয়ে ফিরে আসে বারবার।রাজ্যের প্রয়াত কবিমন্ত্রী অনিল সরকারের নাম বারবার শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করেন তিনি।

Read more...

মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাশের হার ৬৭.৩৮ শতাংশ

প্রকাশিত হলো ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদ পরিচালিত মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল। পরীক্ষায় পাশের হার ৬৭.৩৮ শতাংশ। জেলাভিত্তিক ফলফলে এগিয়ে দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলা। প্রথম দশের তালিকায় স্থান পেয়েছে ১৮ জন। ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মিহির দেব সাংবাদিক সম্মেলন করে মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করেন। তিনি জানান, এ বছর নিয়মিত ও অনিয়মিত নিয়ে মোট ৫১ হাজার ২৯৪ জন পরীক্ষার্থী মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল। তাদের মধ্যে নিয়মিত পরীক্ষার্থী ছিল ৩৭ হাজার ২৬২ জন।মোট পাশ করেছে ২৯ হাজার ২৮৯ জন। এদের মধ্যে প্রথম বিভাগে পাশ করেছে ৪ হাজার ৩৩৫ জন, দ্বিতীয় বিভাগে ৫ হাজার, ৫৭২ জন ও তৃতীয় বিভাগে উত্তীর্ন হয়েছে ১৯ হাজার ৩৭৫ জন। এছাড়া, কম্পার্টমেন্টাল থেকে পরীক্ষা দিয়ে ৭ জন পি ডিভিশন পেয়ে পাশ করেছেন। নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে পাশের হার হলো ৬৭.৩৮ শতাংশ।এবছর ৮১টি বিদ্যালয় থেকে ১০০ শতাংশ পাশ করেছে ও ১২টি বিদ্যালয় রয়েছে যেখানে একজনও পাশ করতে পারেনি।

Read more...

প্রবল ঝড়, বর্ষনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, মৃত ৬

প্রবল বর্ষণ, বাড়ি ধসে, বাজ পড়ে মারা গেলেন ৬ জন। নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় বহু পরিবার নিরাপদ আশ্রয়ে। ১৯টি ত্রাণশিবির খোলা হয়েছে ঊনকোটি জেলায়। কৈলাসহরেই গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড পরিমাণ ২৩৪.‌৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। উত্তর জেলা, ঊনকোটি জেলা ও ধলাই জেলায় গতকাল সন্ধে থেকে বৃষ্টি নামে। তিন জেলাতেই এই ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ধলাই জেলার কমলপুরের লাম্বুছড়ায় একই পরিবারের তিনজন ঘর ধসে মারা গেছেন।তিন জেলাতেই প্রচুর বৃষ্টি হয়েছে। আবহাওয়া দপ্তরের হিসাবে রবিবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় কৈলাসহরে ২৩৪.‌৮ মিমি, পানিসাগরে ১২০.‌৮ মিমি, কাঞ্চনপুরে ১০২ মিমি, খোয়াইয়ে ৬৭.‌৪ মিমি বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি হয়েছে সোনামুড়া মহকুমায় ৬৩.‌৬ মিমি এবং বিশালগড়ে ৬০ মিমি। আবহাওয়াবিদদের মধ্যে সাম্প্রতিক বছরগুলোর মধ্যে একসঙ্গে ২৩৪ মিমি বৃষ্টি কোথাও হয়নি, যা হয়েছে কৈলাসহরে। বৃষ্টিতে ঊনকোটি জেলায় প্রায় বন্যা পরিস্থিতি।মনু নদী ও দেওনদীর জল কোনও কোনও এলাকায় বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছিল। তবে বৃষ্টি থেমেছে। জেলার ফটিকরায়, কাকনবাড়ি, কৃষ্ণনগর, সোনাইমুড়ি, পেচারথল, সাইদাবাড়ির নিচু এলাকা জলমগ্ন হলে জলমগ্ন লোকজনদের জন্য ত্রাণশিবির খুলতে হয়েছে। ১৯টি ত্রাণশিবিরে প্রায় ৩০০ পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। কুমারঘাট মহকুমা শাসক দোয়াতি জংতে জানিয়েছেন, মহকুমা প্রশাসন থেকে খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।  মহকুমা শাসক জানিয়েছেন, বৃষ্টিতে ফসলেরও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।বিপর্যস্ত হয় টেলি, বিদ্যুৎ পরিষেবা। প্রশাসনিক তৎপরতা চলছে দুর্যোগ মোকাবেলায়।

ভূয়ো শংসাপত্র বিষয়ে শিক্ষাদপ্তরকে সতর্ক করলো বিএড পড়ুয়ারা

বাঁকা পথে অন্যরাজ্য থেকে বি এড সার্টিফিকেট যারা এনেছে তারা যেন টেট পরীক্ষায় বসতে না পারে সেজন্য শিক্ষাদপ্তরকে সতর্ক করলো বিএড পড়ুয়ারা। আগাম হুমকী দেয় যে, ভূয়ো সার্টিফিকেট নিয়ে টেট পরীক্ষায় বসার সুযোগ পেলে তারা দু'নম্বরী সার্টিফিকেটের সব তথ্য ফাঁস করে দেবে। রাজ্য শিক্ষা দপ্তরে বিএড ৪র্থ বর্ষের পড়ুয়ারা আবেদন করেছিল, রাজ্য সরকার টেট পরীক্ষার যে আবেদন পত্র নেয়ার ঘোষণা করেছে তার তারিখ ৩১ জুলাই করা হলে তারা ও পরীক্ষায় বসতে পারবে। ৫০০ বিএড পড়ুয়ার এ আবেদনের কারণ সে সময়ের মধ্যে তাদের কোর্স শেষ হয়ে যাবে। ১৪,১৪২জন শিক্ষক নিয়োগে টেট বোর্ড যে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে তারা তাতে অংশগ্রহণ করতে পারে। কিন্তু বিএড পড়ুয়াদের এ দাবির পেছনে রাজনৈতিক ইন্ধন কাজ করছে বলে অপপ্রচার চলছে বলে পড়ুয়ারা শিক্ষা দপ্তরকে আগাম হুমকী দিয়ে রাখে ভূয়া সার্টিফিকেটের তথ্য ফাঁস করে দেবার। পড়ুয়ারা তাদের অপবাদ দেয়ায় প্রচন্ড ক্ষুব্ধ ও বিস্মিত শিক্ষাদপ্তরের কাজকর্মে। বহু সময় শিক্ষামন্ত্রীর বাসভবনে পড়ুয়ারা অপেক্ষার পর ও শিক্ষামন্ত্রী তাদের সাথে কথা বলেন নি বলে চরম অভিযোগ ও শোনা যায়।

ভিডিও গ্যালারী

  ত্রিপুরা ফোকাস  । © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ত্রিপুরা ফোকাস ২০১০ - ২০১৭

সম্পাদক : শঙ্খ সেনগুপ্ত । প্রকাশক : রুমা সেনগুপ্ত

ক্যান্টনমেন্ট রোড, পশ্চিম ভাটি অভয়নগর, আগরতলা- ৭৯৯০০১, ত্রিপুরা, ইন্ডিয়া ।
ফোন: ০৩৮১-২৩২-৩৫৬৮ / ৯৪৩৬৯৯৩৫৬৮, ৯৪৩৬৫৮৩৯৭১ । ই-মেইল : This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.